শ্রীপুরে সৎমায়ের যৌন নিপীড়নের শিকার সেই শিশু মারা গেছে

 

মো: আব্দুল বাতেন বাচ্চু,

দীর্ঘ এক মাস ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসা নেওয়ার পর অবশেষে মৃত্যুর কাছে হার মানলেন গাজীপুরের শ্রীপুরে সৎমায়ের অমানুষিক যৌন নিপীড়নের শিকার আড়াই বছরের শিশু মরিয়ম আক্তার।

রোববার সন্ধ্যায় ওই হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয় বলে রাতে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন তারই চাচা তারেক মিয়া বাবু। তিনি হাসপাতালে শিশুটির দেখাশোনা করছিলেন।

নিহত মরিয়ম আক্তার ময়মনসিংহ জেলার পাগলা থানার বাঁশিয়া গ্রামের মোস্তফা কামালের মেয়ে। অভিযুক্ত সৎমা আলিফা আক্তার রিপা মাগুরা জেলার সদর উপজেলার ধনপাড়া গ্রামের রজব আলী বিশ্বাসের মেয়ে।

নিহতের চাচা তারেক মিয়া সাংবাদিকের বলেন, সৎ মায়ের অমানুষিক নির্যাতনে শিশুটির পায়ুপথ ও যৌনাঙ্গে সংক্রমণ তৈরি হয়ে তা ছড়িয়ে পড়েছিল পুরো শরীরে। চিকিৎসকরা শিশুটির অস্ত্রোপচারও করেছিলেন।

এরআগে, ১১ আগস্ট শিশুটির দাদা নাতনিকে দেখতে এসে দেখেন যে, সে খুব অসুস্থ। পরে দেখেন তার পায়ুপথে ও যৌনাঙ্গে গভীর ক্ষত। এ সময় তার পুত্রবধূকে জিজ্ঞাসা করলে সে একেক সময় একেক কথা বলতে থাকে। পরে তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা শ্রীপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ বলেন, মামলা হওয়ার পরপরই অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা হয়েছে। নিহতের লাশ ময়নাতদন্ত করা হবে। রিপোর্টের ভিত্তিতে দ্রুতই মামলার অভিযোগপত্র দেয়া হবে বলেও জানান তিনি।

উল্লেখ্য, গাজীপুরের শ্রীপুর পৌরসভার বেড়াইদেরচালা গ্রামের দুবাই প্রবাসী মোস্তফা কামালের প্রথম স্ত্রীর ঘরে জন্ম হয় শিশু মরিয়মের। পরে দুবাই প্রবাসী আলিফা আক্তার রিপার সাথে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়লে শিশু মরিয়মের চার মাস বয়সেই তার প্রথম স্ত্রীর সঙ্গে ডিভোর্স হয়। এ সময় আলিফা আক্তারকে বিয়ে করে দ্বিতীয় সংসার শুরু করেন তিনি। তার দ্বিতীয় স্ত্রীর সঙ্গেই থাকত শিশু মরিয়ম। কয়েক মাস পূর্বে তিনি দুবাই চলে যান। পরে নিজ নামে নির্মিত বাড়ি লিখে নিতে ভিন্ন কৌশল অবলম্বন করে শিশুটিকে যৌন নিপীড়ন শুরু করেন ওই সৎমা। তিনি বিভিন্ন রাসায়নিক প্রয়োগ করে শিশুটির পায়ুপথ ও যৌনাঙ্গ ক্ষত-বিক্ষত করেন। পরে অবস্থা গুরুতর হয়ে পড়ায় তাকে হাসপাতালে ভর্তি করেন স্বজনরা।

এ ঘটনায় শিশুটির দাদা বাদী হয়ে তার সৎমায়ের বিরুদ্ধে গত ১২ আগস্ট শ্রীপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করলে পরে তা মামলা রুজু হয়। গত ১৫ আগস্ট অভিযুক্ত সৎমা আলিফা আক্তার রিপাকে গ্রেফতার করা হয়। তিনি বর্তমানে কারাগারে।

পাঠক মন্তব্য

     More News Of This Category এই বিভাগের আরও খবর

ফেইজবুকে আমরা

error: Content is protected !!