ছবিঃ প্রতিকী

হরিণাকুণ্ডু উপজেলায় এক ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রীকে শ্লীলতাহানী,থানায় অভিযোগ দায়ের 

এম.টুকু মাহমুদ হরিণাকুণ্ডু থেকে।।

ঝিনাইদহ জেলার হরিণাকুণ্ডু উপজেলার এক পল্লিতে ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির ঘটনায় সোমবার থানায় অভিযোগ করেছে তার মাতা ছকিনা খাতুন।  ভুক্তভোগী রিতা এবং তার পিতা  খোকন ও মাতা ছকিনা খাতুন জানায় গত শুক্রবার ২৭ এপ্রিল দপুর আনুমানিক ১২টায় পিতা মাতার সাথে সে পার্শবর্তী ধানের জমিতে পানি দিতে যায়, মবিলের অভাবে স্যালোমেশিনে অসুবিধা হলে খোকন মেয়েকে বাড়ী থেকে মবিল আনতে পাঠায়, রিতা মবিল আনার জন্যে বাড়ীর উদ্দেশ্যে রওয়ানা দিলে পথের মধ্যে সিঙ্গেমুড়োর মাঠে একই গ্রামের আক্তার উদ্দীনের ছেলে নাজমূল(২২) তার পথরোধ করে এবং হাতধরে টানাটানি করে কাছাকাছি পানবরজে নেওয়ার চেষ্টা করে এক পর্যায়ে জোরপূর্বক শ্লীলতাহানীর চেষ্টা করে। রিতার আত্মচিৎকারে  কাছাকাছি থাকা একই গ্রামের কালিমুদ্দিনের স্ত্রী রাশিদা খাতুন ছুটে আসলে নাজুমুল পালিয়ে যায় ।

এদিকে রিতা বাড়ী থেকে মবিল নিয়ে আসতে দেরি করায় তার পিতা মাতা ধানে পানি দিতে না পের বাড়ীতে ফিরে আসে এবং রিতা ও প্রতিবেশি রাশিদা খাতুনের কাছে এঘটনা জানতে পারে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার ৩নং তাহেরহুদা ইউনিয়নের গুপিনাথপূর গ্রামে। ভূক্তভোগী রিতা(১১) ঐ গ্রামের খোকন আলীর কন্যা, সে হরিণাকুণ্ডু সরকারী বালিকা বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রী বলে তার পরিবার জানিয়েছে।

এব্যপারে অভিযুক্ত নাজমুলের পিতা আক্তার উদ্দীনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমার ছেলে প্রতিবেশি হিসাবে রিতার ভাই হয় সে রিতাকে ডেকে শুধু তার হাত ধরেছে, বাকি অভিযোগ মিথ্যা, বানোয়াট। এবিষয়ে হরিনাকুন্ডু থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আসাদুজ্জামান এর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন , লিখিত অভিযোগ পেয়েছি,সঠিক তদন্তের জন্য ভবানীপূর পুলিশ ক্যাম্পের আইসি এসআই রফিকুল ইসলামকে নিয়োগ করেছি,  তদন্তশেষে ঘটনার সত্যতা মিললে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে ।

হরিণাকুণ্ডু’র ভবানীপূর পুলিশ ক্যাম্পের আইসি এসআই রফিকুল ইসলামের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, প্রাথমিক ভাবে তদন্ত শেষ করেছি , অভিযোগের সম্পূর্ণ সত্যতা না পাওয়া গেলেও আংশিক সত্যতা পাওয়া গেছে।

     More News Of This Category এই বিভাগের আরও খবর

ফেইজবুকে আমরা

Archive Calendar

error: Content is protected !!