আবরার হত্যায় আমরা শোকাহত, আমি একজন সন্তান হারা পিতা। প্রধান মন্ত্রী স্বজন হারাঃ রবিউল আলম

মোঃ ইব্রাহিম হোসেন, ষ্টাফ রিপোর্টারঃ

আবরার হত্যায় আমরা শোকাহত, আমি একজন সন্তান হারা পিতা। প্রধান মন্ত্রী স্বজন হারা। আবরার দাদার আত্ন নাথ হৃদয় ছুয়ে যায়। অনুভব করি প্রতিটি হত্যাকাণ্ডে শুন্যতা। আমাকে হৃদয় থেকে রক্ত খরন করে। বিচার চাই, করতে হবে হত্যার বিচার। আমার মনে একের পর এক প্রশ্ন, উত্তর খুজার চেষ্টা করি। প্রতিটি রাজনৈতিক দল হ্মমতায় আসতে কোনো গুণ্ডার প্রয়োজন হয় না। কোনো গুণ্ডা দিয়ে গন আন্দোলন হয় না, ভোট আদায় করা যায় না। তবে কেনো হ্মমতায় আসার পরে গুণ্ডার প্রয়োজন হয়। কি কারনে অন্য দল থেকে এনে দল ভারি করতে হয়। হ্মমতা ছাড়া কোনো গুণ্ডা হতে দেখি নাই। যে হ্মমতার অংশিদার এ দেশের জনগণ ও হ্মমতা আনয়নের নিবেদিত কর্মি বাহিনী, তাদেরকে বঞ্চিত করে হ্মমতার অংশ হয়ে পরে গুণ্ডারা। একে পর এক হত্যা, লুট, দখল সরকারকে অস্তিত্বে রাখার দায়ীত্ব যেনো এই বাহিনীর নিত্যদিনের সঙ্গী। কারা এই দল ভারি করার দায়ীত্ব পালন করেন? সরকার প্রধানও জানেন, সরকার পরিবর্তন হয়। এই গুণ্ডা বাহিনীর পরিবর্তন হয় না। কি আজব রাজনীতি। তবে এই প্রথম দেখলাম অপরাধীদের মুখোশ উন্মুক্ত হচ্ছে। নিজের দল থেকে বিচার শুরু হয়েছে। প্রধান মন্ত্রীর পরেও শেখ হাসিনা একজন মা। আবরার হত্যার বিচার তরান্বিত। ছাত্র রাজনীতির গুণ্ডামি আজ থেকে নয়। মুসলিম লীগ, জামাত, জাতিয় পার্টি, বিএনপি, জাসদ, কমিউনিস্ট, কোনো দলের ছাত্র রাজনীতি আমার দেখা বাকী নেই। মুসলিম লীগের এনএসাই টাণ্ডব, শিবিরের রগকাটা, ছাত্রদলের হাতুড়ি পেটা, ছাত্র সমাজের গুপ্তহত্যা, জাসদ ছাত্রলীগে অস্ত্রবাজি, ছাত্র ইউনিয়নের বিপ্লবের নাম লুট। কি দেখে নাই এ দেশের মানুষ। একমাত্র ছাত্রলীগের অর্জন দেখেছে স্বাধীনতা। সেই ছাত্রলীগের নামে আবরার সহ একাদিক হত্যা আমাকে ভাবিয়ে তুলেছে। এরা কারা, প্রতিটি হত্যা, ক্যাসিনো, টেণ্ডার, লুট, দখল, চাদাবাজদের আটক হওয়ার পরে শুনতে হয় অমুক দল থেকে আসা। কেনো তাদেরকে আনা হয়। কেনো তাদের অপরাধের দায়ীত্ব নিতে হয়। আবার কারা শত লুটের আড়ালে আবরার হত্যার বিচারের নামে রাজনৈতিক ফায়দা হাসিলে আন্দোলন। আসলেই কি ওরা আবরার হত্যার বিচার চায়। না কি সস্তায় রাজনীতি করতে চায়। আজব দুনিয়ার আজব শ্লোগান। আবরার হত্যার বিচারের সাথে ভারতে চুক্তি বাতিল চায়। ভিডিও ফুটেজ ৭ ঘন্টা আটক করে রাখে। বিচার চাওয়ার সাথে এই গুণ্ডামি কি অর্থ। আবরার মায়ের কান্না থামানো যাবে না, যাবে না বাবার শুন্যতা পুরন করা। দাদার বুকের হাহাকার কি পুরন হবে। তবে একমাত্র আওয়ামী লীগ  অপরাধীদের বিচারের আওতায় এনেছে। সহায়তা করুন।(ফেসবুক থেকে সংগৃহীত)

লেখক: রবিউল আলম, বিশিষ্ট সাংবাদিক ও লেখক এবং সভাপতি ৩৪ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ ঢাকা-মহানগর উত্তর

     More News Of This Category এই বিভাগের আরও খবর

ফেইজবুকে আমরা

error: Content is protected !!